বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস-৩
বাংলা ভাষার উদ্ভব ও ক্রমবিকাশ
Next >>
চর্যা সংগ্রহটিতে সর্বসমেত কয়টি চর্যাগীতি ছিল? উঃ ৫১ টি।
চর্যাপদের তিব্বতী অনুবাদ কে আবিস্কার করেন? উঃ ডঃ প্রবোধচন্দ্র বাগচী।
চর্যাপদের ভাষায় কোন অঞ্চলের নমুনা পরিলক্ষিত হয়? উঃ পশ্চিম বাংলার প্রাচীনতম কথ্য ভাষার।
ডঃ সুনীতি কুমার চট্টোপাধ্যয় কবে চর্যাপদে ভাষা বাংলা বলে প্রমান করেন? উঃ ১৯২৬ সালে।
চর্যাপদের প্রতিপাদ্য বিষয় কি? উঃ চর্যাপদের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় বৌদ্ধ সহজিয়া সিদ্ধাদের গুহ্য সাধনতত্ত্ব
এবং তৎকালীন সমাজ ও জীবনের পরিচয়।



চর্যাপদ কোন ছন্দে রচিত? উঃ মাত্রাবৃত্তে ছন্দে।
চর্যাপদের পুঁথি নেপালে যাবার কারন কি? উঃ তুর্কী আক্রমনকারীদের ভয়ে পন্ডিতগণ তাদের পুুথি নিয়ে নেপালে পালিয়ে গিয়ে শরনার্থী হয়েছিলেন।
কীর্তিলতা, পুরুষ পরীক্ষা, বিভাগসার প্রভৃতি সাহিত্যকর্মের রচয়িতা কে? উঃ মিথিলার কবি বিদ্যাপতি।
কবীন্দ্রবচন সমুচ্চয় ও সদুক্তি কর্ণামৃত কাব্য কোন যুগে রচিত? উঃ সেনযুগে।
সর্বসমেত কয়টি চর্যাগীতি পাওয়া গিয়েছে? উঃ সাড়ে ছেচল্লিশটি।
সবচেয়ে বেশী পদ কে রচনা করেছেন? উঃ কাহ্নপা, ১৩ টি।
চর্যাপদের রচয়িতা কে বা কারা? উঃ কাহ্নপা, লুইপা, কুক্কুরীপা, ভুসুকু, সরহপাদ সহ মোট ২৪ জন।
চর্যাপদ কোন সময়ে রচিত হয়? উঃ সপ্তম থেকে দ্বাদশ শতাব্দীর মধ্যবর্তী সময়ে।
চর্যাপদের পদগুলো কোন কোন ভাষায় রচিত বলে দাবি করা হয়? উঃ বাংলা, হিন্দী, মৈথিলী, অসমীয় ও উড়িয়া ভাষায়।
রাজা লক্ষন সেনের রাজসভার পঞ্চরত্ন কে কে ছিলেন? উঃ উমাপতিধর, শরণ, ধোয়ী, গোবর্ধন আচার্য ও জয়দেব।
বাংলা ছাড়া কোন কোন বাব্যগ্রন্থে বাঙালী জীবনের চিত্র রয়েছে? উঃ গাথা সপ্তপদী ও প্রাকৃত পৈঙ্গলের।
চন্ডীদাস সমস্যা কি? উঃ বাংলা সাহিত্য একাধিক পদকর্তা নিজেকে চন্ডীদাস পরিচয় দিয়ে সৃষ্ট সমস্যা।


বাংলা সাহিত্যে স্বীকৃত চন্ডীদাস কয়জন? উঃ তিনজন। বড়ু চন্ডিদাস, দীন চন্ডিদাস এবং দ্বীজ চন্ডিদাস।
শ্রীকৃষ্ণ কীর্তন কাব্য কোথা থেকে উদ্ধার করা হয়? উঃ পশ্চিম বঙ্গের বাকুড়া জেলার কাকিলা গ্রামের এক গৃহস্থ বাড়ীর গোয়ালঘর থেকে উদ্ধার করেন।
বৈষ্ণব পদাবলীর আদি রচয়িতা কে? উঃ বড়ু চন্ডিদাস।
আদি যুগে লোকজীবনের কথা বিধৃত সর্বপ্রথম সাহিত্যক নিদর্শন কোনটি? উঃ ডাক খনার বচন।
মধ্যযুুগের বাংলা সাহিত্যর প্রধান দুটি ধারা কি ? উঃ ১। কাহিনীমূলক ও ২। গীতিমূলক।
শ্রী চৈতন্যর নামানুসারে মধ্যযুগের বিভাজন কিরূপ? উঃ চৈতন্য পূর্ববর্তী যুগ (১২০১-১৫০০ খ্রিঃ), চৈতন্য যুগ (১৫০১-১৬০০) ও চৈতন্য পরবর্তী যুগ (১৬০১-১৮০০)
গীত গোবিন্দ কাব্যগ্রন্থের রচয়িতার নাম কি? উঃ জয়দেব।
ব্রজবুলি ভাষার বিখ্যাত সাহিত্যিকের/শ্রেষ্ঠ কবি নাম কি? উঃ বিদ্যাপতি এবং জয়দেব।
চৈতন্য পরবর্তী যুগ বা মধ্যযুগের শেষ কবি কে? উঃ ভারতচন্দ্র রায় গুনাকর।
আধুনিক যুগের উদগাতা কে? উঃ মাইকেল মধুসুদন দত্ত।
কোন যুগকে অবক্ষয়ের যুগ বলা হয়? উঃ ১৭৬০-১৮৬০ সাল পর্যন্ত।
বাংলা সাহিত্যর আধুনিক যুগের সময়কাল কয়পর্বে বিভক্ত ও কি কি? উঃ চারটি পর্বে বিভক্ত। যেমন- ১. প্রস্তুতি পর্ব (১৮০১-১৮০৫)খ্রিঃ,
২. বিকাশ পর্ব (১৮৫১-১৯০০) খ্রিঃ, ৩.রবীন্দ্র পর্ব (১৯০১-১৯৪০) খ্রিঃ ও
৪.অতি-আধুনিক যুগ (১৯০১ বর্তমান কালসীমা)।



আধুনিক যুগ কোন সময় পর্যন্তু বিস্তৃত? উঃ ১৮০১ সাল থেকে বর্তমান।
যুগ সন্ধিক্ষনের কবি কে ? উঃ ঈশ্বরচন্দ্র দত্ত।
ব্রজবুলী ভাষার উদ্ভব কখন হয়? উঃ কবি বিদ্যাপতি যখন মৈথিল ভাষায় রাধাকৃষ্ণ লীলার গীতসমূহ রচনা করেন।
ব্রজবুলি ভাষা কোন জাতীয় ভাষা? উঃ মৈথলী এবং বাংলা ভাষার মিশ্রনে যে ভাষার সৃষ্টি হয়।
ব্রজবুলি কোন স্থানের উপভাষা ? উঃ মিথিলার উপভাষা।
বাংলা ভাষায় রামায়ন কে অনুবাদ করেন? উঃ কৃত্তিবাস।
রামায়নের আদি রচয়িতা কে? উঃ কবি বাল্মীকি।
বাংলা ভাষায় মহাভারত কে অনুবাদ করেন? উঃ কাশীরাম দাস।
মহাভারতের আদি রচয়িতা কে? উঃ বেদব্যাস।
গীতি কাব্যের রচয়িতা কে? উঃ গোবিন্দ্রচন্দ্র দাস।
পুঁথি সাহিত্যের প্রথম সার্থক কবি কে? উঃ ফকির গরিবুল্লাহ।
মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ কবি কে? উঃ মুকুন্দরাম চক্রবর্তী।
বাংলা ভাষা ও সাহিত্যর প্রাচীনতম শাখা কোনটি? উঃ কাব্য।
বাংলা গদ্য সাহিত্য কখন শুরু হয়? উঃ আধুনিক যুগে।
আলাওল কোন যুগের কবি? উঃ মধ্য যুগের।
মধ্যযুগের অবসান ঘটে কখন? উঃ ঈশ্বর গুপ্তের মৃত্যুর সঙ্গে।
উনিশ শতকের সবচেয়ে খ্যাতনামা বাউল শিল্পী কে? উঃ লালন শাহ।

Footer